সাতক্ষীরায় দলিত ও অনগ্রসর গোষ্ঠীর উন্নয়নে নাগরিক সংলাপ অনুষ্ঠিত

 Posted on

॥ মাধব দত্ত, সাতক্ষীরা থেকে ॥
দলিত ও অনগ্রসর জনগোষ্ঠীকে হতদরিদ্র অবস্থা থেকে উন্নয়নের মূলধারায় সম্পৃক্তকরণ, রাষ্ট্রের চলমান কর্মসুচি ও করণীয় শীর্ষক নাগরিক সংলাপ অনুষ্ঠিত হয়েছে।
বেসরকারি সংস্থা শারি ও স্বদেশ এর আয়োজনে সোমবার সকাল ১০টায় সাতক্ষীরা প্রেসক্লাব মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত নাগরিক সংলাপে সভাপতিত্ব করেন সাতক্ষীরা সরকারি মহিলা কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ প্রফেসর আব্দুল হামিদ। প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ নজরুল ইসলাম। অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন জেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা মোঃ রোকনুজ্জামান, প্রেসক্লাব সভাপতি অধ্যাপক আবু আহমেদ, সদর উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মিসেস কেহিনুর ইসলাম, জেলা মন্দির সমিতির সভাপতি বিশ্বনাথ ঘোষ, শারীর খুলনা বিভাগীয় সমন্বয়কারি শিবানী গাইন। উন্মুক্ত আলোচনায় অংশ নেন সাংবাদিক সুভাষ চৌধুরী, কল্যাণ ব্যাণার্জী, এম কামরুজ্জামান, রঘুনাথ খাঁ, জাসদ নেতা সুধাংশু শেখর সরকার, বাসদ নেতা নিত্যানন্দ সরকার, সুশীলনের সহকারি সমন্বয়কারি জিএম মনিরুজ্জামান, দলিত পরিষদের সাতক্ষীরা শাখার সভাপতি গৌরপদ দাস, এনজিও প্রতিনিধি লুইস রানা গাইন, সুনাম শ্যামনগর শাখার সাধারণ সম্পাদক কুমুদ রঞ্জন গাইন, সুনাম সদরের সভাপতি উজ্জ্বল দাস প্রমুখ।
বক্তারা বলেন, হতদরিদ্র গরীব জনগোষ্ঠীর জন্য প্রধানমন্ত্রি যে সকল উদ্যোগ নিয়েছেন তা কার্যকর করতে সংশ্লিষ্ট সরকারি কর্মকর্তা ও জনপ্রতিনিধিদের যথাযথ ভূমিকা রাখতে হবে। দলিত বা অনগ্রসর জনগোষ্ঠীকে সুশিক্ষায় শিক্ষিত করতে হবে। প্রধানমন্ত্রির জমি ও ঘর দেওয়ার ব্যাপারে জনপ্রতিনিধিরা যথাযথ যাঁচাই বাছাই না করে তালিকা প্রস্তুত করায় কোন কোন ক্ষেত্রে পিছিয়ে পড়া মানুষ বঞ্চিত হয়েছে। দলিত বা নৃগোষ্টীর লোক না হওয়ার পরও ফিংড়ির মোখলেছুর রহমান কিভাবে কমিটি প্রধান হয়ে বিভিন্ন প্রকল্পের নামে টাকা লুটপাট করছে তা পিছিয়ে পড়া মানুষদের প্রতিনিধিকেই প্রতিবাদ করতে হবে। দলিত জনগোষ্ঠীর জীবন ও মান উন্নয়নে সরকারি ও বেসরকারি প্রকল্পে তাদেরকে সম্পৃক্ত করে এগিয়ে নিয়ে যেতে হবে।
সমগ্র অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন স্বদেশ এর নির্বাহী পরিচালক মাধব চন্দ্র দত্ত।

Facebook Comments