সম্পত্তি দখল করতে ৬ হিন্দু পরিবারের বসতঘরে অগ্নিসংযোগ

 Posted on

দলিতকন্ঠ ডেস্ক : চট্টগ্রামের মিরসরাইয়ে হুমকি দেওয়ার এক সপ্তাহের মধ্যে পুড়িয়ে দেওয়া হয়েছে ছয় হিন্দু পরিবারের বসতঘর। শনিবার গভীর রাতে উপজেলার মায়ানী ইউনিয়নের পূর্ব মায়ানী মনুভূঁঞাপাড়ায় মৃত অর্জুন শীলের বাড়িতে আগুন দেয় দুর্বৃত্তরা। এতে ওই বাড়ির মৃত অর্জুন শীল, সহদেব শীল, জয়দেব শীল, বাসুদেব শীল, শেফালী শীল ও নীলিমা শীলের ঘর পুড়ে ছাই হয়ে যায়। খবর পেয়ে ভারপ্রাপ্ত ইউএনও সুবল চাকমা, থানার ওসি মজিবুর রহমানসহ হিন্দু ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্ট ও পূজা উদযাপন পরিষদ নেতারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

অর্জুন শীলের স্ত্রী স্বপ্না শীল জানান, দীর্ঘদিন ধরে সম্পত্তি নিয়ে তাদের সঙ্গে স্থানীয় ছেরাজুল ইসলাম গংয়ের মামলা চলছে। মামলা তুলে নিতে এবং জমি দখল নিয়ে বেশ কয়েক মাস ধরে বহিরাগতরা রাতে তাদের বাড়িতে এসে হুমকি দেয়। সপ্তাহ খানেক আগেও রাতের বেলা একদল লোক এসে তাদের বসতঘর পুড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দিয়ে যায়। এসব বিষয় জানানো হলে মিরসরাই থানা পুলিশ এসে তদন্ত করে এবং তাদের নির্ভয়ে থাকতে বলে। স্বপ্না জানান, শনিবার রাতে তাদের ঘরের চালে কে বা কারা ইটপাটকেল ছঁড়তে থাকে। এর কিছুক্ষণের মধ্যে বাড়ির সব ঘরে আগুন ধরিয়ে দেয়।

মায়ানী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান কবির আহম্মদ নিজামী বলেন, বসতঘরে আগুন দেওয়ার ঘটনা পরিকল্পিত বলে তিনি ধারণা করছেন। সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে দোষীদের চিহ্নিত করে গ্রেপ্তার ও শাস্তির দাবি জানান তিনি।

থানার ওসি মুজিবুর রহমান জানান, অগ্নিকাণ্ডে ক্ষতিগ্রস্তদের কেউ এখনও থানায় অভিযোগ দেয়নি। পুলিশ নিজ উদ্যোগে ঘটনার তদন্ত করছে। দোষীদের চিহ্নিত করে শিগগিরই গ্রেপ্তার করা হবে।

মিরসরাই উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি সুভাষ সরকার বলেন, বিরোধ থাকতেই পারে। তাই বলে মধ্যযুগীয় কায়দায় রাতের আঁধারে আগুন দিয়ে বসতঘর জ্বালিয়ে দেওয়া মেনে নেওয়া যায় না। সূত্র : সমকাল

Facebook Comments