রাজবাড়ী জেলার শ্রেষ্ঠ জয়িতা নির্বাচিত আলেয়া বেগম

 Posted on


রাজবাড়ী প্রতিনিধি ঃ নির্যাতনের বিভিষীকা মুছে ফেলে নতুন উদ্যোমে জীবন শুরু করেছে যে নারী এ ক্যাটাগরিতে জেলার শ্রেষ্ঠ হিসাবে ক্রেষ্ট গ্রহণ করেন আলেয়া বেগম। বুধবার জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে জেলা মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের আয়োজনে আন্তর্জাতিক নারী নির্যাতন প্রতিরোধ পক্ষ ও বেগম রোকেয়া দিবস উপলক্ষে ”জয়িতা অন্বেষনে বাংলাদেশ” কার্যক্রমের আওতায় জমকালো অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে নির্যাতনের বিভিষীকা মুছে ফেলে নতুন উদ্যোমে জীবন শুরু করেছে যে নারী এ ক্যাটাগরিতে জয়িতা হিসাবে ক্রেষ্ট গ্রহণ করেন আলেয়া বেগম। রাজবাড়ীর অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) সারোয়ার আহম্মেদ সালেহীন’র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত থেকে ক্রেষ্ট তুলে দেন জেলা প্রশাসক দিলশাদ বেগম। এসময় বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন রাজবাড়ীর জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ফকীর আব্দুল জব্বার,মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের অতিরিক্ত উপ-পরিচালক এম এ নাহার প্রমুখ। অনুষ্ঠানে ১০ জন জয়িতা ক্রেষ্ট ও ফুলেল শুভেচ্ছা প্রদান করা হয়। রাজবাড়ী জেলার কালুখালী উপজেলার মদাপুর ইউনিয়নের বৃ গোপালপুর গ্রামের আলেয়া বেগম, নির্যাতনের বিভিষীকা মুছে ফেলে নতুন উদ্যোমে জীবন শুরু করেছে যে নারী এ ক্যাটাগরিতে জয়িতা নির্বাচিত হয়। আলেয়া বেগম এর স্বামী মারা যাওয়ার পর তার স্থান হয়নি স্বামীর ভিটায়, স্থান হয়নি পিতার বাড়ী, অবশেষে নানার বাড়ীতে আশ্রায় নিয়ে জীবনে ঘুরে দাড়ানোর চেষ্ঠা করেছেন তিনি। সেই চেষ্ঠা সফল হয়ে আজ নিজে ২২ শতাংশ জমি ক্রয় করে বাড়ী করে স্বাবলম্বী হয়েছেন। আলেয়া বেগম বলেন কোথাও কোন ঠাই না পেলেও ইসলামিক রিলিফ বাংলাদেশ নামক একটি প্রতিষ্ঠান আমার পাশে দাড়িয়ে ছিল বলেই আজ আমি স্বাবলম্বী হতে পেরেছি। আমি ইসলামিক রিলিফ বাংলাদেশ’র প্রতি কৃতজ্ঞ। তাদের সহায়তায় এখনও আমার ছেলেদের পড়ালেখা করিয়ে যাচ্ছি আমি ইসলামিক রিলিফ বাংলাদেশ নাম প্রতিষ্ঠানটির অবদানের কথা কখনও ভ’লব না। এ ব্যাপারে ইসলামিক রিলিফ বাংলাদেশ রাজবাড়ী ফিল্ড অফিসের অফিস ইনচার্জ সুমী বিশ^াস বলেন আমরা ইসলামিক রিলিফ বাংলাদেশ চেষ্ঠা করে চলছি অসহায় এতিম শিশুদের নিয়ে ও তাদের পরিবারকে স্বাবলম্বী করার চেষ্ঠা করে চলছি। আজ আমাদের ভাল লাগছে যে আমাদের ৪ জন এতিম শিশুর মা জয়িতা নির্বাচিত হয়েছে এ জন্য আমরা গর্ববোধ করছি। আজ নারীরা এগিয়ে যাচ্ছি দেশ এগিয়ে যাবে আমাদের ভিশন সাফল্যের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে।

Facebook Comments