বীরমুক্তিযোদ্ধার বসত-বাড়িতে হামলা, গ্রেফতার-১

 Posted on


এসএম বাচ্চু,তালা (সাতক্ষীরা) প্রতিনিধি::

ভূয়া কাগজ-পত্র দাখিল করে বীর মুক্তিযোদ্ধার বসত-বাড়ির সম্পত্তি বিক্রি অত:পর আদালতের নির্দেশ অমান্য করে সশস্ত্র হামলার ঘটনায় থানায় ৫ জনকে আসামী করে একটি মামলা হয়েছে।

অভিযোগে সুত্রে ও মামলার বিবরনে জানা যায়, সাতক্ষীরার তালা উপজেলার ফলেয়া গ্রামের মৃত বীর মুক্তিযোদ্ধা শেখ আনছার আলীর সাথে তার বসত-বাড়ির ফলেয়া মৌজার এস,এ ৮৫ নং খতিয়ানের দাগ নং-১১৩ হাল ১৫৬ দাগের .১০ একর সম্পত্তি নিয়ে দীর্ঘ দিন যাবৎ বিরোধ চলে আসছিল একই গ্রামের মৃত রেজাউল বিশ্বাসের ছেলে মো: রুবেল বিশ্বাসের সাথে। এনিয়ে আদালতে একটি মামলা বিচারাধীন রয়েছে।

এদিকে রুবেল মামলায় পরাজয় নিশ্চিত জেনে গত বছর করোনাকালের মধ্যে তার মালিকানাধীন .০৫ একর সম্পত্তির পাশাপাশি মুক্তিযোদ্ধা শেখ আনছার আলী গংদের রেকর্ডীয় .১০ একর সম্পত্তির তঞ্চকতাপূর্ণ কাগজ-পত্র প্রস্তুত করে ইসলামকাটি সাব:রেজিস্ট্রারের সাথে যোগসাজসে পার্শ্ববর্তী চাঁদকাটি গ্রামের আমজাদ আলী গাজীর ছেলে আব্দুর রহিম গাজীর নিকট বিক্রি করে দেয়। মূলত এরপর বিবাদমান সম্পত্তির দখল বুঝে নিতে রুবেল পায়তারা শুরু করে। বিষয়টি আঁচ করতে পেরে বীর মুক্তিযোদ্ধা আনছার আলীর ছেলে আনারুল শেখ বাদী হয়ে রুবেল বিশ্বাস(৩০) ও আব্দুর রহিম গাজী (৩২) কে আসামী করে সাতক্ষীরা বিজ্ঞ জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে একটি মামলা করেন। ধারা: ১৪৫ ফৌ:কা:বি:, যার নং-১০৭৭/২০ (তালা)।

আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে গত ২২ ডিসেম্বর ২০ ১ নং আদেশে তদন্তপূর্বক যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য তালা থানা ওসিকে প্রেরণ করেন। ঐ মামলায় আগামী ৯ ফেব্রæয়ারী আদালতের দিন ধার্য্য রয়েছে বলে জানানো হয়।

এদিকে আসামীরা আদালতে মামলার ঘটনায় আরো বেপরোয়া হয়ে পড়ে। এমনকি আদালতের নির্দেশ অমান্য করে গত ১৫ জানুয়ারি বিকেল ৪ টার দিকে চাঁদকাটির আমজেদ গাজীর ছেলে আ: রহিম গাজী (৩২) ও তার ভাই হামিদুল গাজী (২৮), সমর আলী মোড়লের ছেলে আছাদুল মোড়ল(৪০), মাগুরাডাঙ্গার আ: রহিম সরদারের ছেলে মাহফুজ সরদার(৪৫), মৃত বাহাদুর খাঁর ছেলে রবিউল (৪৫) সহ অজ্ঞাতনামা আরো ৯/১০ সশস্ত্র অবস্থায় বীর মুক্তিযোদ্ধা শেখ আনছার আলীর বাড়িতে হামলা চালায়। এসময় তারা বাড়ি-ঘর ভাংচুর ও লুটপাট চালিয়ে প্রায় আড়াই লক্ষ টাকার ক্ষতি সাধন করে।

এসময় হামলাকারীরা মুক্তিযোদ্ধার দু’ছেলে আনারুল শেখ (৪০) ও মমিন শেখ (২৮) কে বেধড়ক মারপিট করে। এসময় মুক্তিযোদ্ধার পুত্রবধূ খাদিজা (৩০), ফারজানা বেগম (২০) ও তার বিধবা স্ত্রী রাফিজা বেগম (৫০) তাদের ঠেকাতে গেলে তারা তাদেরকেও মারপিট ও পরনের শাড়ী-বøাউজ টেনে-হিঁছড়ে ছিড়ে শ্লীলতাহানি ঘটায়। এসময় তাদের ডাক-চিৎকারে প্রতিবেশীরা এগিয়ে আসলে হামলাকারীর হুমকি দিয়ে ঘটনাস্থল ত্যাগ করে।
সর্বশেষ খবর পেয়ে ঐ দিনই তালা থানার এস আই পিযুষ কান্তি ঘটনাস্থল পরিদর্শন ও রাতেই মামলাটি রেকর্ড হয় বলে জানানো হয়। মামলাটি করেছেন মুক্তিযোদ্ধার বিধবা স্ত্রী রাফিজা বেগম। যার নং-৫, তারিখ ১৬/০১/২১। মামলায় অভিযুক্ত একজনকে পুলিশ গ্রেফতার করে আদালতে প্রেরণ করেছে।

অন্যদিকে মামলায় ৫ জন আসামীর একজনকে গ্রেফতার করলেও ঘটনার মূল নায়করা রয়েছেন ধরা ছোঁয়ার বাইরে। গ্রেফতার এড়াতে তারা পুলিশের চোখ ফাঁকি দিয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছে।

এব্যাপারে তালা থানার অফিসার ইনচার্জ মো: মেহেদী রাসেল বলেন, এঘটনায় থানায় ৫ জনকে আসামী করে একটি মামলা হয়েছে। এছাড়া মামলায় আসামীদের মধ্যে মাহফুজ সরদার(৪৫) নামে একজনকে গ্রেফতার করে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

Facebook Comments