বাগরেহাট পৌরসভা এলাকার শতাধকি দলতি পরচ্ছিন্নতার্কমী পরবিারে স্বাধীনতার চার দশকওে উন্নয়নের ছোয়া লাগনেি : নোংরা ও আর্বজনার মধ্যে বসবাস

 Posted on

সুনীল দাস :: বাগরেহাট পৌর শহরে বসবাসকারী শতাধকি দলতি পরচ্ছিন্নতার্কমী পরবিারে স্বাধীনতার চার দশকওে কোন উন্নয়নের ছোয়া লাগনে।ি হয়নি তাদরে কোন স্থায়ী বসবাসরে ব্যবস্থা। শহররে দুই লক্ষাধকি মানুষরে পরষ্কিার-পরচ্ছিন্নতার দায়ত্বি পালন করলওে তাদরে আবাসস্থানরে পরচ্ছিন্নতার খবর কউে রাখে না। শহররে এই পরচ্ছিন্নতার্কমীরাই বসবাস করছে নোংরা ও আর্বজনার অস্বাস্থ্যকর পরবিশে।ে ফল ে তাদরে পরবিাররে সদস্যদরে সারা বছরই রোগ-বালাইসহ নানান সমস্যায় থাকতে হয়। সরজেমনি শহররে রলেস্টশেন সংলগ্ন কলোনীতে গয়িে দখো গছেে এক অস্বাস্থ্যকর ও অমানবকি অবস্থা। একতেো নোংরা পরবিশে তারপরে বৃষ্টতিে তাদরে র্দুভােগ আরও বাড়য়িে দয়িছে।ে জল-কাদা ও র্নদমার আর্বজনার ঠাসাঠাসতিে প্রতটিি ঘর, তার আশপাশ সবখানইে স্যাঁৎসঁেতে পরবিশে। স্নানরে পর তাদরে জামা-কাপড় শুকানোর কোন ব্যবস্থা নইে। ভজিে কাপড়ইে অনকেরে কটেে যায় দনি। এখানরে রলে বস্ততিইে তাদরে কটেে গছেে দশকরে পর দশক। এখানে কথা হয় শকুন্তলা, মানকিলাল হলো, স্বপন হলো ও র্কাত্তকি লাল হলোসহ অনকেরে সাথ।ে তারা জানায়, সরকাররে অনকেগুলো প্রকল্প ও সহায়তার খাত আছ।ে কন্তিু তাদরে ভাগ্যে তা নইে। কউেই তাদরে দকিে তাকায় না। এমনকি তারা কোথাও সাহায্যরে জন্য গলেওে তাদরেকে কোন কছিুই দওেয়া হয় না। উল্টো নানান কথা শুনতে হয় ন¤িœজাতরে মানুষ বল।ে র্বতমান সরকার দলতি ও হরজিনদরে জন্য বশিষে সুযোগ-সুবধিার ব্যবস্থা করলওে তাদরে র্পযন্ত পৗেঁছায় না। গত ২০০৭ সালে ভয়াল র্ঘূণঝিড় সডিররে সময়ে তাদরে ঘরবাড়ি নষ্ট হলওে র্পুনবাসনরে আওতায় তারা তমেন কোন সুবধিা পান ন।ি সরকাররে আশ্রয়ন প্রকল্পরে নামে ভুমহিীন ও হতদরদ্রি এবং ছন্নিমূল মানুষরে পুর্নবাসন প্রকল্পওে তাদরে জায়গা হয় না। তারা আবদেন করওে তালকিাভুক্ত হয়ন।ি এছাড়া খাস জমি বন্দোবস্ত দওেয়া হলওে সখোনে পরচ্ছিন্নতার্কমীদরে জায়গা হয়না। তারা শহররে মানুষরে জন্য সবো দয়িে গলেওে কউে তাদরে দকিে তাকায় না। তাদরে অবস্থা যমেন ছলি তমেনই রয়ে গছে।ে এ কলোনীর বাসন্দিা স্বপন হলো জানান, দুই ছলে,ে এক ময়েে ও স্ত্রীকে নয়িে পাঁচজনরে সংসার তার। একটইি মাত্র ঝুপড়ি ঘররে মধ্যইে কাটে তাদরে দনিরাত। ছলেদেুটি ও ময়েকেে স্কুলে লখোপড়া শখোনোর চষ্টো করছনে। কন্তিু তাদরে লখোপড়ার উপযোগী কোন জায়গা নইে যখোনে বসে তারা লখোপড়া করতে পার।ে স্কুলে কোন বতেন না লাগলওে তাদরে জামা-কাপড় ও বই-খাতা দওেয়ারও অবস্থা তার নইে। বভিন্নি লোকরে কাছ থকেে সহায়তা নয়িে তাদরেকে শক্ষিতি করার জন্য পরশ্রিম করছনে। র্সবােপরি বসবাসরে ঘরে ও আশপাশরে পরবিশে এত বশেি অপরচ্ছিন্ন এবং অস্বাস্থ্যকর যে কারণে ছলে-েময়েরো প্রায়ই রোগাক্রান্ত থাক।ে যাতে ছলে-েময়েদেরে লখোপড়ায় ব্যাঘাত ঘট।ে একই অবস্থা শহররে পরচ্ছিন্নতার্কমীদরে কলোনীতে বসবাসকারী শতাধকি পরবিারইে। গত চার দশকওে তাদরে এ অবস্থার উন্নয়ন ঘটনে।ি বাগরেহাট জলো হরজিন সমতিরি সভাপতি র্কাত্তকিলাল হলো ও সাধারণ সম্পাদক মানকিলাল হলো জানান, সরকারভিাবে পৌরসভা, উপজলো পরষিদসহ বভিন্নি দপ্তওে স্বাস্থ্যসবো র্কমী ও সবোর্কমী হসিাবে তাদরে নয়িোগরে বধিান থাকলওে তাদরেকে বঞ্চতি করা হচ্ছ।ে সরকারি বভিন্নি প্রকল্পরে মাধ্যমে ভুমহিীন, হতদরদ্রি ও ছন্নিমূল পরবিারকে র্পুনবাসন করা হলওে তারা অবহলো ও বঞ্চনার শকিার হচ্ছনে। যে কারণে র্অধ শতাব্দী আগরে সইে বস্তি ঘরইে এখনও তাদরে বসবাস করতে হচ্ছ।ে তাদরে দকিে কউেই ফরিওে তাকায় না। তারা সরকারি খাস জমি ও আশ্রয়ন প্রকল্পে অগ্রাধকিার ভত্তিতিে পরচ্ছিন্নতার্কমীদরে পুর্নবাসনরে দাবি জানান।

Facebook Comments