প্রণব মুখার্জি স্মরণে রাষ্ট্রীয় শোক পালিত

 Posted on

॥ দলিত কন্ঠ ডেস্ক ॥

বাংলাদেশের অকৃত্রিম বন্ধু, উপমহাদেশের কিংবদন্তি রাজনীতিক, ভারতের সাবেক রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখার্জির মৃত্যুতে গতকাল সারা দেশে রাষ্ট্রীয়ভাবে শোক পালিত হয়।

সরকারি নির্দেশনা মেনে দেশের সব সরকারি, আধা-সরকারি ও স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠান এবং শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানসহ সব সরকারি ও বেসরকারি ভবনে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত রাখা হয়। প্রণব মুখার্জির জন্য মন্দিরে বিশেষ প্রার্থনার আয়োজন করা হয়। এর আগে মঙ্গলবার সরকারের মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ রাষ্ট্রীয় শোক পালন সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করে।
ভারতের ১৩তম রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখার্জি স্মরণে ঢাকার ভারতীয় হাইকমিশন একটি ডিজিটাল শোক বই খোলে। গতকাল শোক বইয়ে স্বাক্ষর করেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন। এ সময় প্রণবের প্রতিকৃতির সামনে দাঁড়িয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন তিনি। শোক বইয়ে স্বাক্ষর করার সময় প্রণব মুখার্জিকে বাংলাদেশের অকৃত্রিম বন্ধু বলে স্মরণ করেন ড. মোমেন। এ সময় ঢাকায় নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনার রিভা গাঙ্গুলী দাশ উপস্থিত ছিলেন।

গত সোমবার সন্ধ্যা সোয়া ৬টার দিকে প্রণব মুখার্জি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।

নড়াইলে শ্রদ্ধাঞ্জলি : নড়াইল প্রতিনিধি জানান, নড়াইলের জামাইবাবু হিসেবে খ্যাত ভারতের সাবেক রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখার্জির মৃত্যুতে সদর উপজেলার চাচড়া-তুলারামপুরে গতকাল দুপুরে শ্রদ্ধাঞ্জলি ও স্মরণসভা অনুষ্ঠিত হয়। প্রণব মুখার্জির পতœী নড়াইলের মেয়ে শুভ্রা মুখার্জির নামে প্রতিষ্ঠিত শুভ্রা মুখার্জি ফাউন্ডেশনের আয়োজনে এ শ্রদ্ধাঞ্জলি ও স্মরণসভা হয়। শুভ্রা মুখার্জি ফাউন্ডেশনের ট্রাস্টি কার্তিক ঘোষের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন নড়াইলের জেলা প্রশাসক আনজুমান আরা। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পুলিশ সুপার মো. জসিম উদ্দিন, নড়াইল সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সালমা সেলিম ও তুলারামপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান বুলবুল আহমেদ।

স্মরণসভায় বক্তারা বলেন, ভারতের সাবেক রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখার্জি ছিলেন বাংলাদেশের অকৃত্রিম বন্ধু। তিনি ছিলেন নড়াইলের মানুষের অতি আপনজন। নড়াইল সদর উপজেলার ভদ্রবিলা গ্রামের অমরেন্দ্র ঘোষ ও মীরা রানী ঘোষ দম্পতির কন্যা গীতা ঘোষকে (পরবর্তী নাম শুভ্রা মুখার্জি) বিয়ে করেন প্রণব মুখার্জি। ভারতের রাষ্ট্রপতি থাকাকালে তাঁর স্ত্রী নড়াইলের মেয়ে শুভ্রা মুখার্জিকে সঙ্গে নিয়ে ২০১৩ সালের ৫ মার্চ নড়াইল সদর উপজেলার ভদ্রবিলা গ্রামের শ্বশুরবাড়িতে বেড়াতে আসেন তিনি।

Facebook Comments