তাড়াশে এবার আক্কাস আলীর ভিন্নধর্মী শোডাউন!

 Posted on

\ সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি \
মঞ্চ গড়েছেন নিজেই। সভাস্থলে তিনি একাই নেতা, অনুষ্ঠানের প্রধান বক্তা, আবার সভাপতিও। রাজনীতির মাঠে এমন এক আয়োজন করে তোলপাড় সৃষ্টি করেছেন সিরাজগঞ্জের তাড়াশ উপজেলার তালম ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের হঠাৎ সভাপতি পদপ্রার্থী আক্কাস আলী। তালম গ্রামের রজব আলীর ছেলে। দীর্ঘদিন আওয়ামীলীগের রাজনীতির সাথে জড়িত থাকলেও দলের কোন পদবি না পাওয়ায় এই কর্মী বুধবার বিকেলে তালম সাহেব বাজার এলাকায় নিজে সভা ডেকে তার আগাম প্রার্থীতা ঘোষনা করেন ব্যতিক্রম অনুষ্ঠান করে। তবে মঞ্চে তেমন উল্লেখযোগ্য নেতা বা গন্যমান্য ব্যক্তি না থাকলেও চার পাশে ভীড় জমিয়ে আক্কাস আলীর বক্তব্য শুনেছেন অনেকেই। অনুষ্ঠান শেষে আবার জিলাপীও বিতরণ করেছেন আক্কাস আলী। মঞ্চ তিনি মাইক লাগিয়ে একাই বক্তব্য দিয়েছেন। তবে তার সরল উপস্থাপনা মুগ্ধ করেছে সবাইকে।


আক্কাস আলী বলেন, তৃণমূল পর্যায়ের একজন সাধারণ মানুষ এবং আওয়ামীলীগ পরিবারের সন্তান আমি। দুর্দিনে কেউ যখন থানা, ইউনিয়ন এবং ওয়ার্ড পর্যায়ে কমিটিতে হাল ধরতে সাহস পেতনা। তখন তার বাবা রজব আলী দীর্ঘ ১৭ বছর অক্লান্ত পরিশ্রম এবং সাহসিকতার সাথে ওর্য়াড সভাপতির দায়িত্ব নিষ্ঠার সাথে পালন করেছিলেন। এখন দলের সমর্থক ও নেতা বেড়েছে। কিন্তু দলের মধ্যে ভালবাসা ও আন্তরিকতার বড়ই অভাব। আমি ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সভাপতি পদে দাঁড়িয়েছিলাম, হতে পারিনি। এবার তালম ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি পদপ্রার্থী। সবাই আমার জন্য দোয়া করবেন। জননেত্রী শেখ হাসিনার জন্য দোয়া করবেন। তার এমন আয়োজনের কথা জানতে চাইলে তিনি জানান, নিজের টাকা খরচ করে আমি নিজে মঞ্চ তৈরি করেছি। তাই বক্তব্যও আমি দিয়েছি। আমি সাধারন জনগনের জন্য কর্মী হিসেবে কাজ করতে চাই। ঘুষ, দুর্নীতি করতে চাইনা। প্রকৃত দরদি নেতা হতে চাই। আমাকে একটু সুযোগ করে দিয়ে দেখুন। নিজের পেট ভরাবো না। জাতির পিতার আদর্শ বাস্তবায়ন করে দেখাবো।
এ ব্যাপারে তাড়াশ উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মোঃ আব্দুল হক বলেন, আওয়ামীলীগ একটা বড় দল। আর এ দলের কর্মী ও সমর্থকও অনেক। পদ একজন চাইতেই পারে। তবে আজকে যে ঘটনা শুনলাম এটা আগে কখনো দেখিনি। আক্কাস আলীর প্রচারনার ধরনটা একটু ভিন্ন মনে হচ্ছে।

Facebook Comments