ভারতে গেলো ইলিশের প্রথম চালান, আসবে না পেঁয়াজ

 Posted on

দুর্গাপূজা উপলক্ষ্যে বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকে বিশেষ শুভেচ্ছা স্বরূপ ১ হাজার ৪৫০ টন ইলিশের প্রথম চালান বেনাপোল বন্দর দিয়ে ভারতের পেট্রাপোল বন্দরে প্রবেশ করেছে। গতকাল সোমবার সন্ধ্যা ৬টার দিকে প্রথম চালানের দুইটি ট্রাকে ১২ টন ইলিশ ভারতে পেট্রাপোল বন্দরে প্রবেশ করে।

ইলিশ রফতানিকারক প্রতিষ্ঠান হলো খুলনার জাহানাবাদ সি ফুড লিমিটেড। আমদানিকারক প্রতিষ্ঠান ভারতের জে কে এন্টারপ্রাইজ। এর সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট বেনাপোলের নীলা এন্টারপ্রাইজ। প্রতি কেজি ইলিশ মাছ মার্কিন ১০ ডলারে রফতানি করা হয়, যা বাংলাদেশি মূদ্রায় ৮৫০ টাকা। এবার মোট নয়টি সংস্থাকে কম করে ১৫০ মেট্রিক টন করে ইলিশ রফতানির অনুমতি দিয়েছে ঢাকা।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, ২০১২ সালে বাংলাদেশ থেকে ভারতে ইলিশ মাছ রফতানির ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়। তবে এরপর বাংলাদেশ সরকার একাধিকবার ভারত সরকারকে শুভেচ্ছা উপহার স্বরূপ ইলিশ মাছ দিয়েছে। গতবছরও দুর্গাপুজার সময় দেওয়া হয়েছিল ৫০০ টন ইলিশ।

এদিকে সোমবার (১৪ সেপ্টেম্বর) থেকে বাংলাদেশে সব ধরনের পেঁয়াজ রফতানি বন্ধ করেছে ভারত।

পেঁয়াজ রফতানি বন্ধের বিষয়ে ভারতের হিলির সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট শংকর দাস বলেন, সম্প্রতি ভারতের বিভিন্ন প্রদেশে অতিবৃষ্টি ও বন্যার কারণে পেঁয়াজের উৎপাদন ব্যাহত হয়েছে। ফলে ভারতের বাজারেই পেঁয়াজের মূল্য বৃদ্ধি পেয়েছে। এমন অবস্থায় পেঁয়াজের মূল্যবৃদ্ধি রুখতে রফতানি বন্ধে সোমবার দুপুর ১২টার দিকে ভারত সরকার হিলি কাস্টমসে নির্দেশনা দিয়েছে। সে মোতাবেক কাস্টমস কতৃপক্ষ জানিয়েছেন, পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত আজ থেকে সব ধরনের পেঁয়াজ রফতানি বন্ধ থাকবে।

এ সংক্রান্ত সরকারি প্রজ্ঞাপন এখনো জারি হয়নি, তবে অচিরেই জারি হবে বলে জানিয়েছেন শংকর দাস। একই সঙ্গে পেঁয়াজ আমদানির জন্য যেসব এলসি খোলা রয়েছে এবং টেন্ডার প্রক্রিয়া সম্পুর্ণ হয়েছে সেগুলোর বিপরীতেও কোনো পেঁয়াজ রফতানি হবে না বলে জানান তিনি।

গতকাল দুপুর ২টা পর্যন্ত বন্দর দিয়ে কোনো পেঁয়াজ ভারত রফতানি করেনি ভারত।

Facebook Comments